বিলুপ্তির পথে বিয়ে

বৈশ্বয়িক উন্নতির সাথে সাথে বদলে যাচ্ছে সমাজের প্রথাগুলোর, সমাজের প্রতিষ্ঠান গুলোর। বিয়ে নামক যে প্রথার মাধ্যমে সুন্দর পরিবার তৈরী হয়, সেই বিয়ের অস্তিত্ব আজ হুমকির মুখে। সমাজের ট্রাডিশনগুলোর পরিবর্তন কত দ্রুত হচ্ছে। কোন কোন দেশে ৫৫-৭৫ ভাগ বাচ্চার জন্ম হচ্ছে বিয়ে ছাড়াই। ব্রাজিলের ৩টি বাচ্চার মধ্যে দুটিই হচ্ছে বিয়ে ছাড়া। ভাবছেন এর বাতাস বাংলাদেশে লাগবেনা?? চিন্তার বিষয় বটে! বিয়ের মাধ্যমে যে পরিবার তৈরী হয় সেই পরিবারে যে বাচ্চাগুলো বড় হয় সেই বাচ্চাগুলো মানসিকতার ধরন হয়ত বিয়ের বহির্ভূত জন্ম নেওয়া বাচ্চাগুলোর মানসিকতা থেকে আলাদা। অর্থনৈতিক ভাবে উন্নত দেশগুলোতে বিয়ে ধীরে ধীরে জাদুঘরে স্থান করে নিচ্ছে।

20160116_IRC052.png

খুবই শংকার বিষয় হলো ইদানিং বাংলাদেশে তালাকের হার আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৩ সালে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে ডিভোর্স পিটিশনের সংখ্যা ছিলো ৮,১৯১ টি, যা পূর্বের বছরগুলোর তুলনায় বেশি ৭,৬৫৩ টি ছিলো ২০১২ সালে এবং ২০১১ সালে ছিলো ৬৭৭৬ টি এখানে ক্লিক করুন…। তালাকের হার যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে আমার কাছে মনেহয় সমাজে একধরনের অসহিষ্ণু মানসিকতা কাজ করছে। হয়ত এটি হচ্ছে সমাজ পরিবর্তনের যে ট্রানজিশন পিরিয়ড সেটির কারনে। হয়ত এই পরিবর্তন যে কোন একদিকে হয়ে যাবে। তালাকের হার বৃদ্ধি ধর্মভিত্তিক সমাজের জন্য এই জন্যই আশংকার যে এতে করে সমাজের উপর এক ধরনের চাপ তৈরী হয়, ফলে অন্যায় অব্যবস্থাপনার পথ প্রশস্ত হয়। পরিবারের প্রতি মানুষের একধরনের ঘৃণা তৈরী হয়। আর এই ঘৃণা থেকে মানুষ বৈবাহিক জীবনের চেয়ে বিয়ে না করেও এক সংগে থাকার পথ বেচে নেই, যাতে করে ঝামেলা হলে আলাদা হওয়া যায়।

ইদানিং অনেক প্রাকটিসিং মুসলিমের মধ্যেও এই তালাকের প্রবনতা আছে।
https://purematrimony.com/ এই সাইটটি মুসলিমদের বিয়ের জন্য প্রাকটিসকিং মুসলিম/মুসলিমাহ খুজতে অনেক ভালো ভূমিকা রাখছে। আমি নিজেও কিছুদিন সাইটটি ব্যবহার করেছি। মজার ব্যাপার হলো অনেক ইয়ং মুসলিমাহ আছে যারা তালাক প্রাপ্তা। বিষয়টি নিয়ে আমি ভেবেছিলাম যে কেনো এত অল্প বয়সে তালাকের ঘটনা ঘটছে। আমার কাছে মনেহয় নিজে নিজে ইসলাম শেখার কারনে, ইসলামকে কনটেক্সট বুঝে প্র‍্যাকটিক্যালী না শেখার কারনে। কিছু শিখেও মনের মধ্যে এক ধরনের ধারনা তৈরী করে অসহিষ্ণু মনোভাব তৈরী করে ফলে হঠাত করে অনেক পরিবর্তন কামনা করে যা পরিবারে সমস্যা তৈরী করে ফলস্বরূপ বিচ্ছেদ। এগুলো নিয়ে মুসলিম সমাজে আলোচনা হওয়া দরকার। আমার কাছে মনেহয় বাংলাদেশের মত দেশে উন্নত বিশ্বের মত পরিসংখ্যান তৈরী হওয়ার আগেই শুধুমাত্র রাজনীতির পেছনে না ছুটে সমাজের এই সমস্যা গুলো নিয়ে কাজ করা উচিত। সমাজে যদি সমস্যা থেকে যায় তাহলে রাজনীতির পেছনে সময় নষ্ট করে লাভ কি হবে? রাজনীতির চেয়ে সমাজের এসব সমস্যা নিয়ে কাজ করা উচিত।

20160116_IRC960

বিবেচনায় নেয়ার ব্যাপার হলো, বাংলাদেশে প্রাকটিসিং মুসলিমদের মধ্যেও তালাকের হার বেড়ে যাচ্ছে। এই বিষয়টির উপর খুব গুরুত্ব দিয়ে কাজ করা উচিত যাতে করে এটি সমাজে মহামারী আকার ধারন না করে।

ইসলামি রাজনৈতিক দুলগুলো সমাজের এরকম সমস্যা ভিত্তিক কিছু প্রজেক্ট হাতে নিতে পারে। কিছু মানুষকে এগুলোর জন্য কাজ করার জন্য ডেডিকেটেড ভাবে নিয়োগ করতে পারে। তাহলে সমাজের কাছে কাজগুলো প্রসংশিত ও হবে আবার কিছু সমস্যা দুর হবে, সমাজের কাঠামো ঠিক থাকবে, প্রথাগুলো বেচে থাকবে। যা একটি জাতির পরিচয়কে বাচিয়ে রাখতে সাহায্য করবে।

চার্ট দুটির উৎস, দ্যা ইকোনমিষ্ট

আরো কিছু পরিসংখ্যান নিচে দেয়া হলো।

Marital History of U.S. Men from 1940-2012

marital-history-of-men-by-birth-cohorts-2008-2012

যারা জীবনে কখনই বিয়ে করেনি তাদের সংখ্যার হার ১৯৭০-৭৯ সালের মধ্যে দ্রুতই বৃদ্ধি পেয়েছে এই সংখ্যা হয়ত এখন আরো বেশি।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s